ঝটপট নারিকেল বরফি

খুব সহজ এবং সাধারন একটা রান্না আজ আপনাদের সামনে হাজির করছি। হালুয়া টাইপ যাকে বলে ‘নারিকেলের বরফি’! চলুন দেখে ফেলি। ধর্মীয় উৎসবে, ঈদে চান্দে আপনারা রান্না করে টেবিলে রেখে দিতে পারেন। আপনার বাসায় আসা অতিথি ও আত্মীয় স্বজন খেয়ে মজা পাবে।রইলো রেসিপি।

উপকরণ

– দুই কাপ নারিকেল বাটা

– এক কাপ চিনি (মিষ্টি বুঝে শুনে)

– দুই টেবিল চামচ সুজি

– তিন টেবিল চামচ ঘি

– এক চিমটি রোষ্টেড এলাচি গুড়া (এলাচি সামান্য ভেঁজে গুড়া করে নিতে হবে)

– কয়েকটা কিসমিস (ডেকোরেশোনের জন্য, না হলে নাই!)

প্রনালী

কড়াইতে ঘি গরম করে তাতে একে একে সব দিয়ে দিন। (শুধু এলাচ গুড়া রেখে দিন)

চুলা ছেড়ে যেতে পারবেন না। মাঝারি আঁচে আগুন জ্বলবে এবং আপনি খুন্তি দিয়ে নাড়াতে থাকবেন। পাতিলের তলায় যেন না লেগে যায়।

চিনি গলে এবং সব কিছু মিলে একাকার হয়ে যাবে। এক সময়ে আঢালো ভাব চলে গিয়ে টান টান ভাব এসে যাবে। কিছুটা সময় লাগবে। ধৈর্য থাকতে হবে!

এবার এলাচ গুড়া ছিটিয়ে দিন।

ভাল করে মিশিয়ে নিন। আরো কিছুক্ষন হালকা জ্বালে রাখুন।

ব্যস হয়ে গেল। পরিবেশনের বাটিতে নিয়ে নিন।

হাত দিতে চেপে চেপে সমান করে নিন। (হাত পানিয়ে ধুয়ে ও বার বার চুবিয়ে নিয়ে)

ফ্রীজে রেখে দিন। ঘন্টা চার পর ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন। (আগে কেটে নিতে পারেন কিংবা পরে কাটতে পারেন)

আমি গরম গরম এক টুকরা খেয়ে দেখেছি, ওয়াও! কি বলবো। চমৎকার। ডেলিশিয়াস!

বসনিয়ান পরোটা‘রেসিপি

আজকের রেসিপি আয়োজনে রয়েছে দারুণ মজাদার বসনিয়ান পরোটা‘রেসিপি । আপনাদের কে দেখাবে কি ভাবে তৈরি করবেন দারুন মজার এই রেসিপিটি । খুব সহজে এবং তাড়াতাড়ি এই পদটি তৈরি করা যায়। চলুন জেনে নিই, কী কী উপকরণ লাগবে এই রেসিপিতে এবং কীভাবে তৈরি করবেন বসনিয়ান পরোটা‘রেসিপি

যা যা লাগবে

ময়দা- ২ কাপ,

ডিম-১ টা,

চিনি-১ চা চামচ,

তেল- ২ চা চামচ,

ইস্ত-২ চা চামচ,

দুধ লিকুইড- ১ কাপের একটু বেশি।।

যেভাবে করবেন

প্রথমে কুসুম গরম দুধে ইস্ট ভিজিয়ে রাখতে হবে ১০ মিনিট। ডিম ফেটিয়ে ময়দা চিনি তেল আর ভেজানো ইস্ট একসাথে করে দুধ দিয়ে ময়ান বানিয়ে নিতে হবে। ময়ানটা শক্ত ও হবে না আবার নরম ও হবে না। এবার ময়ান টা গরম জায়গায় ১ ঘণ্টার জন্য রেখে দিতে হবে, দুই চুলার মাঝখানে রাখতে পারেন।

ময়ানটা ফুলে দিগুণ হবে। তখন মোটা মোটা করে রুটির মতো বেলে নিতে হবে ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে সাথে ইচ্ছে করলে একটু ঘি মিক্সড করে দিতে পারেন ডুবো তেলে মিডিয়াম আচে ভেজে নিলেই হয়ে গেল বসনিয়া পরোটা। আমি ঘি দিয়ে ভেজেছি এবং বেশ ভালো হয়েছে আর ফুলেও উঠছে।

ডিমের পুডিং কেক তৈরির রেসিপি

পুডিং ও কেক দুটিই খুব মজাদার খাবার। কিন্তু এইটা খাবারকে যদি একত্রে রান্না করা হয় তবে কেমন হবে? নিশ্চয়ই এর স্বাদও দ্বিগুণ হয়ে যাবে। খুব সহজেই বাড়ির সবার জন্য বানিয়ে ফেলতে পারেন ডিমের মজাদার পুডিং কেক। তাহলে চলুন জেনে নিই রেসিপি।

উপাদান

১. ডিম ৮ টি

২. দুধ ৩০০ গ্রাম

৩. চিনি ৩০০ গ্রাম

৪. পাউরুটির স্লাইস ৫/৬ টি

প্রনালি

প্রথমে সবগুলো ডিম ভেঙ্গে দুইটি পাত্রে ডিমের সাদা অংশ আর কুসুম আলাদা করে রাখুন। এরপর ডিমের সাদা অংশটা ভালো করে ফেটিয়ে নিন। অন্য পাত্রের কুসুমের সঙ্গে চিনির অর্ধেকটা (১৫০ গ্রাম) মিশিয়ে ভালভাবে ফেটিয়ে রাখুন।

এবারে চুলায় ডেকচিতে করে দুধ গরম দিন। দুধ সামান্য গরম হলে একটু গরম দুধ নিয়ে পাউরুটির স্লাইসগুলো ভালভাবে স্ম্যাশ করে নিন। এরপর গরম দুধে ভিজিয়ে স্ম্যাশ করা স্লাইসগুলো দুধের পাত্রে ঢেলে বাকি চিনিটুকু (অবশিষ্ট ১৫০ গ্রাম) ও পাত্রের ডিমের কুসুম দিয়ে ভালভাবে মিশিয়ে নিন।

এবার পুডিং ডিসে মাখন বা অল্প ঘি মাখিয়ে তাতে মিশ্রিত দুধ ও ফেটানো সাদা অংশ ঢেলে দিন। ওপরে ১ টেবিল চামচ কিসমিস, অল্প জাফরান, বাদাম কুচি ছড়িয়ে দিন।পাত্রের মুখে ঢাকনা দিয়ে অল্প আঁচে বসিয়ে রাখুন। ১০/১৫ মিনিট পর জমে গেলে নামিয়ে নিজের মত করে পরিবেশন করুন।

আপনার মন্তব্য দিন

শেয়ার