জিরো থেকে হিরো হওয়া বলিউড তারকা যারা

বলিউড তারকামাত্রই বাড়ি-গাড়ির মালিক এমন ধারনা কম-বেশী সবার ভেতরেই রয়েছে। বিশেষ করে খানিকটা বিখ্যাত হয়ে গেলেতো আর কথাই নেই। এখানে ওখানে কতশত বিলাসবহুল বাড়ি গড়ে ওঠে তাদের। খেতে যান তারা দামী রেষ্টুরেন্টে, অবকাশ যাপনে যান মায়ামি বীচ বা অন্য কোন নয়নাভিরাম ও বিলাসবহুল স্থানে। সত্যি বলতে এসব ধারণা খুব যে একটা ভুল তা নয়। বলিউডের বেশীরভাগ তারকাই এসেছেন নামী-দামী পরিবার থেকে। উত্তরাধিকারসূত্রেই কাজ করেছেন এখানে। কিন্তু তাই বলে সবাই নয়। বলিউডের খ্যাতিমান এমন অনেক তারকাই আছেন যাদের প্রথম জীবনের শুরুটা হয়েছিল একেবারে নিঃস্বভাবে। আর তেম কিছু জিরো থেকে হিরো বনে যাওয়া তারকার কথাই নীচে দেওয়া হল। তালিকায় আছেন অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, বোমান ইরানি, শাহিদ কাপুর থেকে শুরু করে আরও অনেকে।


১. অমিতাভ বচ্চন-

শিশু থেকে বুড়ো- কে না চেনে বচ্চন পরিবারের এই প্রধানকে? বলিউডের এই মেগাস্টারকে এক নজর দেখার জন্য তার বাড়ির সামনে প্রতিদিন অপেক্ষা করে থাকে হাজার হাজার মানুষ। তবে এ সবই এখনকার কথা। প্রথম জীবনে অমিতাভ বচ্চনকে যেতে হয়েছিল বেশ কষ্টকর সময়ের মধ্য দিয়ে। এমন একটা সময় ছিল যখন তার কোন থাকার জায়গা ছিল না। নিঃস্ব অবস্থায় দিনের পর দিন মেরিন ড্রাইভের বেঞ্চেই তখন রাত কাটাতেন এলাহবাদ থেকে আগত এই তারকা। ক্যারিয়ারের প্রথমে অতিরিক্ত উচ্চতা ও কন্ঠস্বরের জন্যেও তাকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন অনেকে। যদিও বচ্চনের বেশিরভাগ ভাক্তই তাকে ভালোবাসে তার উচ্চতা আর কন্ঠস্বরের জন্য।


২. অনিল কাপুর-

স্লামডগ মিলিয়নারখ্যাত এই তারকাকেও প্রথম দিকে বেশ কষ্ট সহ্য করতে হয়েছিল। ১৯৭৯ সালে অনেক চেষ্টায় তিনি কড়া নাড়তে পেরেছিলেন বলিউডের দরজায় ছবি হামারা তুমহারার মাধ্যমে। যদিও ছবির প্রধান চরিত্রে তিনি প্রথম অভিনয় করেন বো সাত দিন নামক ছবিটিতে।


৩. বোমান ইরানি-

থ্রি ইডিয়টসের ভাইরাস খ্যাত এই তারকা বর্তমানে বেশ ভালো অবস্থানে থাকলেও একসময় তিনি কাজ করেছেন ওয়েটার হিসেবে। তাজমহল প্যালেস হোটেলের খাবার পরিবেশক ছিলেন তিনি। এছাড়াও মায়ের সাথে বেকারীর দোকানও চালাতেন এই পার্সি তারকা। হয়তো এভাবেই চলতো। কিন্তু মুন্নাভাই এমবিএস ছবিটিই তার জীবনে মোড় ঘুরিয়ে দেয়। থিতু হন তিনি বলিউডে।


৪. শাহরুখ খান-

বিলাসবহুল জীবনে অভ্যস্ত বলিউডের এই কিং খান ২৫ বছর আগে ছিলেন দিল্লীর একজন অতি সাধারন যুবক। অভিনয়ের নেশায় গনসংযোগের ওপর করতে থাকা স্নাতোকোত্তর ডিগ্রীর মায়া ছেড়ে মাত্র ১৫০০ টাকা হাতেই রাস্তায় নামেন তিনি। ছেড়ে আসেন মুম্বাই। ফৌজি নামক সিরিয়ালে কাজ কর প্রথমে অভিনয় জগতে নাম লেখান শাহরুখ। আর তারপরেই তিনি মনযোগ কাড়েন যশ চোপড়ার। ডর ছবির মাধ্যমে যশ চোপড়ার হাত ধরে ছবির জগতে আসেন তিনি। আর এখন সেই ১৫০০ টাকা পকেটে নিয়ে ঘুরতে থাকা ছেলেটাই এখন বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী তারকা।


৫. ইরফান খান-

১৯৮৮ সালে টিভি সিরিয়াল ভারাত এক খোঁজের মাত্র দুটো এপিসোডের মাধ্যমে বলিউডে পদার্পন করেন এই তারকা। আবিনয় করেন এক ডক্টর কি মউত নামক কম বাজেটের ছবিতে। তবে তার অভিনয় প্রথম সবার নজর কাড়ে আসিফ কাপাডিয়ার ওয়ারিয়র ছবির মাধ্যমে। এরপর আর পেছনে ফিরতে হয়নি ইরফানকে। হাসিল ও মকবুল নামক ছবিগুলোর মাধ্যমে একের পর এক সাফল্যে শিখায় চড়েছেন তিনি। তার অভিনয়ের ক্ষেত্র এখন হলিউড পর্যন্ত বিস্তৃত। দ্যা মাইটি হার্ট, স্লামডগ মিলিয়নার এবং লাইফ অফ পাই ছবিগুলোর মাধ্যমে সবারই মনযোগ কাড়তে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এছাড়াও বলিউডের দ্যা লাঞ্চবক্স এবং পান সিং তৌমার নামক ছবিগুলোও তাকে খ্যাতি এনে দিয়েছে দুহাত ভরে।


৬. জ্যাকি শ্রুফ-

জয় কিষান শ্রুফ ওরফে জ্যাকি শ্রুফের জন্ম একটি মধ্যবিত্ত গুজরাটি পরিবারে হলেও তিন বাত্তি লেনে থাকাকালীন নিজের চালচলনের ফলে বেশ চোখে পড়েন তিনি সবার। এসময় মডেল হিসেবে কাজ করতে থাকা জ্যাকিকে লক্ষ্য করেন সুভাষ ঘাইও। নিজের হিরো ছবিতে প্রথম তিনি অভিনয় করান জ্যাকিকে। পরে অনিল কাপুরের সাথে করা বেশ কিছু ছবির বদৌলতে অনিল-জ্যাকি জুটি হিসেবে সবার মনযোগ আকর্ষন করতে সক্ষম হন তারা।


৭. অক্ষয় কুমার-

খিলাড়িখ্যাত এই তারকা প্রথম জীবনে কাজ করতেন ব্যাঙককের হোটেলের ওয়েটার হিসেবে। সেখানে থালা-বাসনও ধুতেন তিনি এবং রাতেও রান্নাঘরেই ঘুমোতেন। আর মাইনে পেতেন ১৫০০ টাকা। তবে শেষ অব্দি অক্ষয় বলিউডে পা রাখেন। তবে সেটা শুধুমাত্র টাকার কারনেই। তার আগের চাকরির চাইতে বলিউডে উপার্জন বেশী হয বলেই তিনি নিয়মিত হন বলিউডে।


৮. মিঠুন চক্রবর্তী-

বাঙালী বাবু মিঠুন চক্রবর্তীকে প্রথমটায় বেশ কষ্ট করতে হয়েছে বলিউডে। নির্মাতা হৃষিকেশ প্রথম মিঠুনকে সুযোগ দেন তার ছবির এক জুনিয়র আর্টিষ্ট হিসেবে। আর এরপরই মিঠুন অভিনয় করেন ডিস্তো ড্যান্সারে। জেতেন জাতীয় পুরষ্কার আর কেড়ে নেন সবার নজর। এরপর আর পেছনে ফিরতে হয়নি বলিউডের এই ডিস্কো ড্যান্সারকে।


৯. রজনীকান্ত-

থালাইভারখ্যা রজনীকান্ত সবসময়ই তামিল আর বলিউড জগতের ভগবান হিসেবে ছিলেননা। একসময় এই অভিনেতাকেও অভাবের কারণে করতে হয়েছে কুলি এবং বাস কন্ডাক্টরের কাজ। তবে তার প্রথম ছবি অপূর্ব রাগাঞ্জালই তাকে এনে দেয় জাতীয় পুরষ্কার এবং বিখ্যাত অভিনেতার খ্যাতি। এরপর আর থামতে হয়নি থালাইভারকে।


১০. শহীদ কাপুর-

তাল ও দিল তো পাগল হ্যায় ছবির ব্যকগ্রাউন্ড ড্যান্সার হিসেবে প্রথম বলিউডে কাজ করেন শহীদ। আর সেখানেই তিনি নজরে পড়েন পরিচালক রমেশ তাউরানির। আর তার ছবি ইশক ভিশকেই প্রথম অভিনেতা হিসেবে কাজ শুরু করেন শহীদ কাপুর। মাঝখানে নিজের ক্যারিয়ারে খানিকটা ভাঁটা নামলেও সোনাক্ষী সিনহার সাথে জুটি বেঁধে বর্তমানে আবার নিজের আগের ফর্মে ফিরে এসেছেন এই তারকা।

আপনার মন্তব্য দিন

শেয়ার